লাইফ স্টাইল

মুখের কালো দাগ দূর করার সহজ টিপস

মুখের কালো দাগ দূর করার সহজ টিপস

আপনি নিশ্চয় আপনার মুখের কালো দাগ বা কালচে ছোপগুলো নিয়ে খুবই বিরক্ত হয়ে আছেন। অথবা দেখা যায় যে, মুখের রঙের চাইতে হাত-পা কি বেশী কালচে। কিংবা আমাদের শরীরের কোনো বিশেষ অঙ্গের কালো দাগ নিয়ে কি আপনি হয়ত খুবই চিন্তিত। তবে আপনি চাইলে এখন ঘরে বসেই ত্বকের কালো দাগ বা ব্রন দূর করতে পারে এমন কয়েকটি উপাদান দেয়া হলো আপনার জন্য। এগুলো যদি নিয়মিত ব্যবহারে আপনি পাবেন সুন্দর ফর্সা ত্বক।

মুখের কালো দাগ দূর করার সহজ টিপস

এখন বাজারে অনেক নিত্য নতুন ক্রিম পাওয়া যায় মুখের কালো দাগ দূর করার জন্য। কিন্তু এগুলো আমাদের মুখের জন্য কতটা মানানসই তা কি আমরা জানি। এগুলো আমরা না জেনে ব্যবহার করে থাকি। পরবর্তীতে দেখা যায় যে, এর ফলে মুখের দাগ তো দূর হয় না বরং আরও সমস্যা দেখা দেয়। তাই আমরা আপনাকে কিছু প্রাকৃতিক টিপস দিব, যা আপনার ত্বকের কালো দাগ দূর করতে বিশেষ কার্যকরী।

১) অ্যালোভেরাঃ অ্যালোভেরা কেবল মুখের কালো দাগ দূর করতেই নয়, ত্বকের ব্রণ, দাগছোপ ইত্যাদি এগুলো দূর করতে অত্যন্ত কার্যকরী একটি উপাদান। আপনি চাইলে অ্যালোভেরা জেল বের করে আক্রান্ত স্থানে মাখুন খুব আলতো হাতে। এমন ভাবে ম্যাসাজ করুন যেন অ্যালোভেরা জেল ত্বক পুরোপুরি শুষে নিতে পারে। আপনি চাইলে ঘণ্টা খানেক ত্বকে রাখার পর হালকা কুসুম গরম পান দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে পারেন।

২) মসুর ডালঃ প্রথমে আপনি মুসুর ডাল গুড়ো করে তার মধ্যে ডিমের হলুদ অংশটা মিশিয়ে নিন৷ রোদের মধ্যে এই পেস্টটা শুকিয়ে শিশির মধ্যে ভরে রেখে দিন৷ আপনি প্রতিদিন রাতে শোবার আগে ২ ফোটা লেবুর রসের সঙ্গে ১ চামচ দুধ মিশিয়ে পুরো মুখে লাগান৷ আধ ঘন্টা বা তার কিছু বেশি সময় মুখে রাখার পরে মুখটা ধুয়ে ফেলুন৷ এতে করে আপনার মুখের রঙ ফর্সা হয়ে যাবে৷

৩) পানি খান বেশি করেঃ আপনার ত্বক ভালো রাখার একমাত্র উপাদান হল পানি। আপনি যদি প্রচুর পানি খান তাহলে আপনার শরীর থেকে টক্সিন বের হয়ে যায়। আপান্র শরীরে রুক্ষতা থাকে না। এতে করে আপনার ত্বক সতেজ থাকে। তাই আপনার ত্বককে ভাল রাখতে হবে প্রচুর পরিমাণে পানি খেতে পারেন।

৪) লেবুর রসঃ সাধারণত লেবুর রসের মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে সাইট্রিক এসিড। এছাড়া আরও রয়েছে এল-এসকোরোবিক এসিড, যা কিনা প্রাকৃতিক অ্যান্টি অক্সিডেন্টের প্রধান উৎস।  প্রথমে একটি তুলোর টুকরোর মধ্যে লেবুর রস মিশিয়ে আপনার ত্বকের কালো জায়গায় লাগান। মিশ্রণটি সারা রাত মুখে রাখুন। আপনার মুখের কালো দাগ দূর করতে এই পদ্ধতিও বেশ কার্যকর।

৫) রসুনঃ রসুনের গন্ধ হয়তো অনেকেরই বিরক্ত লাগতে পারে। কিন্তু এই রসুনের মধ্যে রয়েছে অ্যান্টিসেপটিক ও অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল উপাদান; যা কিনা আপনার মুখের কালো দাগ দূর করতে সক্ষম। শুধু কি তাই, রসুন আমাদের দেহের বিভিন্ন রোগ-প্রতিরোধেও উপকারী। রসুন ক্যানসার প্রতিরোধ করে।

৬) মধুঃ মুখের কালো দাগ দূর করতে মধু খুব উপকারী। মিষ্টি স্বাদের এই মধু আপনি মাস্কের মতো মুখে লাগাতে পারেন। প্রায় পাঁচ মিনিট এর মতো মুখে লাগিয়ে রাখুন। তারপর কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। মধুর ভেতর আছে অ্যান্টি ইনফ্লামেটরি এবং অ্যান্টি সেপটিক উপাদান। যা আপনার ত্বকের জন্য খুবই উপকারী।

৭) কলা ও লেবুর মাস্কঃ সাধারণত পাকা কলা ও লেবু মিশিয়ে মসৃণ পেস্ট তৈরি করুন। এই মিশ্রিত পেস্ট আপনি চাইলে মুখে, গলায়, হাতে, পায়ে যে কোন জায়গায় ব্যবহার করতে পারেন। রোজ লাগান আপনার শরীরের কালো দাগে প্রায় ১৫ মিনিট এর মতো রেখে দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। কিছু দিন পর থেকে দেখতে পারবেন দারুণ কাজে দেবে। আপান্র ত্বকের ও শরীরের জন্য এটা বিশেষ উপকারী। কেননা এটা আপনার ত্বকের কালো দাগ দূর করতে সক্ষম।

স্বাস্থ্য সম্মত জীবন যাপন করার জন্য সঠিক লাইফস্টাইল বেছে নেওয়া অত্যন্ত জরুরী। যারা পরিচ্ছন্ন লাইফস্টাইল মেনে চলে তারা স্বাস্থ্যগত অনেক সমস্যা থেকে মুক্ত থাকার সুযোগ পায়। তাই সুস্থ লাইফস্টাইল গড়ে তোলার জন্য ইহাসপাতালের ব্লগটি নিয়মিত পড়ুন। সুস্থ জীবন ধারনের নিত্যনতুন টেকনিক নিয়ে নিয়মিত আমরা পোষ্ট করে যাচ্ছি শুধুমাত্র আপনার উপকারের জন্য। এই সংক্রান্ত যেকোনো জিজ্ঞাসা থাকলে আমাদের ফোন করতে পারেন। আমাদের বিশেষজ্ঞ স্বাস্থ্য পরামর্শদাতারা আপনার সাহায্যে সর্বদা নিয়োজিত আছে।

ই হাসপাতাল প্রতিষ্ঠানটির মূল লক্ষ হচ্ছে সকল প্রকার স্বাস্থ্যসেবা সাধারণ দোরগোড়ায় পৌঁছে দেওয়া, চিকিৎসা বিষয়ক সুপরামর্শ প্রদান করা, বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের অ্যাপয়েন্টমেন্টের ব্যবস্থা করে দেওয়া, প্রয়োজনে হাসপাতালে ভর্তি ও সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করা, দুর্লভ ঔষধ সমুহের প্রাপ্যতা নিশ্চিত করা, সাধারণ মানুষকে স্বাস্থ্য সম্পর্কে সচেতন করার লক্ষে কাজ করে যাচ্ছে ই হাসপাতাল।

জরুরী মুহূর্তে স্বাস্থ্যসেবা পাওয়ার জন্য অথবা আপনার স্বাস্থ্য সংক্রান্ত যেকোনো সমস্যার সমাধান পাওয়ার জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।

ইমেইলঃ support@ehaspatal.com;  ওয়েবসাইটঃ http://ehaspatal.com/